/

বিশ্ব জয়ের মন্ত্র ‘আমি জানতে চাই’

thereporter

প্রকাশিতঃ 2:21 pm | October 15, 2017

ঢাকা: ডিজিটাল বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব দিতে আমাদের সজাগ থাকতে হবে। আর এর জন্য আমাদের একটি ইনোভেটিভ মাইন্ডসেট দরকার। আর সব থেকে বড় যে দরকার সেটা হলো একটা ‘লার্নএবল’ জেনারেশন দরকার। যারা শিখতে চায়, জানতে চায়। আমি সবকিছু জানি না, কিন্তু ‘আমি জানতে চাই’। এ ইচ্ছাটা যদি কারও মধ্যে থাকে তাহলে বিশ্ব জয় করা সম্ভব।

শনিবার (১৪ অক্টোবর) রাজধানীর খামারবাড়ির  কৃষিবিদ ইনিস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) মিলনায়তনে ‘ডিজিটাল ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ ফর ওমেন ২০১৭’ এর সমাপনী ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বিশ্ববিখ্যাত সফটওয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ‘মাইক্রোসফট’ এর প্রযোজনায় দেড় মাসব্যাপী এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন ওমেন ইন ডিজিটাল। এবছর গত ৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১৯২টি প্রকল্প নিয়ে দেশের ২৫৬ জন নারী শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে এ প্রতিযোগীতার শুরু হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী আরও বলেন, আমি নিজে যেটা মনে করি সেটা হলো আমি সব কিছু জানি না। কিন্তু, যখন মাইক্রোসফট’র প্রধান বিল গেটস কি নোট প্রেজেন্টেশনটা দেয় সেটাও আমি ‘ইউটিউব’ এ দেখতে চাই, যখন ‘ফেসবুকে’ মার্ক জুকারবার্গ বক্তব্য দেয় সেটাও আমি জানতে চাই, যখন গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই স্পিস দেয়, তখন আমি জানতে চাই। আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করবো আপনাদের সবকিছু জানার দরকার নাই, কিন্তু আপনারা এটা মনে রাখুন আমরা ‘জানতে চাই’। তাহলে আপনারা বিশ্ব জয় করতে পারবেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জাফর ইকবাল, মাইক্রোসফট’র পরিচালক সোনিয়া বশির কবীর, রামগঞ্জের পৌর মেয়র এমএ আওয়াল, আইসিটি ডিভিশনের অ্যাডিশনাল সেক্রেটারি সুশান্ত কুমার সাহা, ওমেন ইন ডিজিটাল এর উপদেষ্টা আব্দুল খায়ের পাটোয়ারী, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন হক, বেসিস এর সভাপতি মোস্তফা জব্বার, সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান, ওমেন ইন ডিজিটালের প্রতিষ্ঠাতা আছিয়া খালেদা নীলা প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে ‘ডিজিটাল ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ ফর ওমেন- ২০১৭’ প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার দেওয়া হয়।