/

সাজা প্রাপ্তদের জামিন হলে আমার হচ্ছে না কেন?

thereporter

প্রকাশিতঃ 2:34 pm | March 25, 2018

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী প্যানলের বিজয়ে খালেদা জিয়ার মনোবল আরো চাঙ্গা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন।

রোববার বিকেলে কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাথে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, ম্যাডামের শারীরিক অবস্থা অনেক ভাল, সেই সাথে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী প্যানলের বিজয়ে তার মনোবল আরো চাঙ্গা হয়ে গেছে। কাজেই আমরা মনে করি, ম্যাডাম মনের দিক থেকে অনেক শক্তিশালী।

এর আগে চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার বেলা সোয়া ১২ টার দিকে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের চিঠি কারা কতৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করেন। পরে বিকেল ৩ টা ৪০ মিনিটে তারা খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করতে কারাগারে প্রবেশ করেন। এসময় ৬ আইনজীবীদের মধ্যে ছিলেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, আবদুর রেজাক খান, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, এ জে মোহাম্মদ আলী, সুপ্রিমকোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন, সাধরণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন।

বিদেশী আইনজীবী নিয়োগে খালেদা জিয়ার সাথে কোন কথা হয়েছে কি না- সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জয়নুল আবেদীন বলেন, বিদেশী আইনজীবী নিয়োগ করা অপরাধ নয়। আমাদের উপর যে ম্যাডামের আস্থা নেই, এ কথা তিনি কখনও বলেন নাই। আজকেও তিনি (খালেদা জিয়া) আমাদেরকে বলেছেন, আপনারা সিনিয়র আইনজীবী, আপনাদের উপর আমার যথেষ্ট আস্থা রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বলেছেন বাংলাদেশে আইনজীবীরা হলো দেশের বিবেক। যেহেতু সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবীদের নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী শক্তি বিজয়ী হয়েছে। সুতরাং আপনারা ঐক্যবদ্ধ থাকেন ভবিষ্যতে যেখানে যে নির্বাচন হবে ইনশাআল্লাহ সেই নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী শক্তি বিজয় লাভ করবে।

সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির এই সভাপতি জানান, সদ্য শেষ হওয়া সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে জয়লাভ করায় ম্যাডাম আমাদেরকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, আইনজীবীরা আদালতে যে ভূমিকা রেখেছেন এতে তিনি (খালেদা জিয়া) খুব খুশি হয়েছেন।

তিনি বলেন, আমরা ম্যাডামকে আশ্বস্ত করেছি, আমরা আইনি লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি। আপনাকে যেখান থেকে যে কথাই বলুক না কেন, আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে সিনিয়র আইনজীবীরা আলাপ-আলোচনা করে আইনের বিভিন্ন দিক বিচার-বিশ্লেষন করে মামলাগুলোকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। ইনশাআল্লাহ আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে মামলাগুলোতে আমরা জয়লাভ করবো।

জয়নুল আবেদীন বলেন, আমরা ম্যাডামকে আরও বলেছি, সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ভাবে যেভাবেই আপনাকে কারাগারে রাখার চেষ্টা করুক না কেন, আজকে আইনজীবীরা ঐক্যবদ্ধ। তাই আমরা আশা করি, আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে আপনাকে আমরা কারাগার থেকে বের করে নিয়ে আসতে পারবো।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন জানান, ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) আমাদের সাথে কোন রাজনৈতিক আলোচনা করেননি। আমরা দেশনেত্রীকে আশ্বস্ত করেছি, দেশে যদি আইনের শাসন থাকে তাহলে বর্তমান স্বৈরশাসক মিথ্যা সাজানো প্রতিহিংসামূলক মামলা দিয়ে আপনাকে কারাগারে আটকে রাখতে পারবে না। ইনশাল্লাহ অবিলম্বে আপনি মুক্তি লাভ করবেন।

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ম্যাডাম আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন, হাইকোর্ট ৫ বছরের সাজা প্রাপ্তদের জামিন দিয়ে দেয় আমার হচ্ছে না কেন? তিনি (খালেদা জিয়া) আরও বলেন, আমি কোন অন্যায় করিনি। আমার বিরুদ্ধে যতগুলো মামলা করা হয়েছে, সবগুলোলেই নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারের ষড়যন্ত্র।