/

‘প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে ১১ অভিযোগ’

thereporter

প্রকাশিতঃ 4:15 am | October 15, 2017

ছুটিতে থাকা প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার প্রাক্কালে দেওয়া লিখিত বিবৃতি প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট বলেছেন, ‘বিবৃতিটি বিভ্রান্তিমূলক’।

সুপ্রিম কোর্টের বক্তব্যে বলা হয়েছে, ‘রাষ্ট্রপতি প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বিরুদ্ধে ১১টি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ সম্বলিত দালিলিক তথ্যাদি আপিল বিভাগের পাঁচ বিচারপতির কাছে হস্তান্তর করেছেন। এর মধ্যে বিদেশে অর্থপাচার, আর্থিক অনিয়ম, দুর্নীতি, নৈতিক স্খলনসহ আরও সুনির্দিষ্ট গুরুতর অভিযোগ রয়েছে’।

শনিবার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে এ বক্তব্য দেন সুপ্রিম কোর্ট। রেজিস্ট্রার জেনারেল সৈয়দ আমিনুল ইসলাম স্বাক্ষরিত বক্তব্যটি সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে।

শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) রাত ১১টা ৫৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের এসকিউ-৪৪৭ ফ্লাইটে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হন বিচারপতি সিনহা। রাত ০৯টা ৫৫ মিনিটে বাসা থেকে বের হওয়ার আগে তিনি সাংবাদিকদের কাছে লিখিত বিবৃতিটি দিয়ে যান।

দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির সুপ্রিম কোর্টের প্রশাসনে পরিবর্তন আনা প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রীর বক্তব্যে দ্বিমত প্রকাশ করে ওই বিবৃতিতে তিনি বলেছিলেন, ‘এ ধরনের রেওয়াজ নেই’।

সুপ্রিম কোর্টের বক্তব্যে বলা হয়েছে, ‘ছুটি ভোগরত প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা গত ১৩ অক্টোবর বিদেশ যাওয়ার প্রাক্কালে একটি লিখিত বিবৃতি উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে হস্তান্তর করেন, যা সুপ্রিম কোর্টের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। বিবৃতিটি বিভ্রান্তিমূলক’।

বিচারপতি সিনহা তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির কার্যভার পালনরত প্রবীণতম বিচারপতির উদ্ধৃতি দিয়ে আইনমন্ত্রী প্রকাশ করেছেন যে, দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি অচিরেই সুপ্রিম কোর্টের প্রশাসনে পরিবর্তন আনবেন। প্রধান বিচারপতির প্রশাসনে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি কিংবা সরকারের হস্তক্ষেপ করার কোনো রেওয়াজ নেই। তিনি তার রুটিনমাফিক দৈনন্দিন কাজ করবেন। এটিই হয়ে আসছে’।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সুপ্রিম কোর্টের বক্তব্য নিম্নরুপ‍ বলে সর্বোচ্চ আদালত বলেন, ‘গত ৩০ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রপতি প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা ছাড়া আপিল বিভাগের অন্য ৫ জন বিচারপতিকে বঙ্গভবনে আমন্ত্রণ জানান। বিচারপতি মো. ইমান আলী দেশের বাইরে থাকায় ওই আমন্ত্রণে উপস্থিত থাকতে পারেননি।